Home কুষ্টিয়া অপহৃত চারদিন পর কুষ্টিয়ায় মাদ্রাসাছাত্র উদ্ধার 

অপহৃত চারদিন পর কুষ্টিয়ায় মাদ্রাসাছাত্র উদ্ধার 

177

অপহৃত চারদিন পর কুষ্টিয়ায় মাদ্রাসাছাত্র উদ্ধার

মাদ্রাসা ছাত্র মো. রনিকে (১৫)নিখোঁজের চারদিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। ১৫ জানুয়ারি রবিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে রাজবাড়ী জেলার পাংশা থানার মাছপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। সোমবার দুপুর এক টার দিকে মাদ্রাসা ছাত্র মো. রনিকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ।

উপজেলার চৌরঙ্গী ইব্রাহিম জোয়ার্দার হিফজুল কোরআন নূরানি মাদ্রাসার ছাত্র ও কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার গোপগ্রাম ইউনিয়নের বরইচারা গ্রামের কৃষক মো. তোফান প্রামাণিকের ছেলে রনি।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত ১১ জানুয়ারি বুধবার বেলা পৌনে ১২ টার দিকে মাদ্রাসা ছাত্র রনি শ্যাম্পু কিনতে চৌরঙ্গী বাজারে গেলে একটি একটি চক্র তাকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনার পরদিন ১২ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকালে ওই ছাত্রের বাবা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে গত ১৫ জানুয়ারি রবিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে রাজবাড়ী জেলার পাংশা থানার মাছপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।১৬ জানুয়ারী সোমবার সকালে তাকে তার পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

তাকে ক্রিকেট খেলার কথা বলে একটি চক্র সিঙ্গারা খেতে দিয়ে অজ্ঞান করে কৌশলে অপহরণ করে।

মাদ্রাসায় হাফেজ পড়ছে তার ছেলে। গত বুধবার শ্যাম্পু কিনতে গিয়ে সে নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় পরের দিন তিনি কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন বলে জানান মাদ্রাসা ছাত্রের বাবা তোফান প্রামাণিক।

পরে গত ১৫ জানুয়ারি রোববার একটি মুঠোফোন নম্বর থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি তার কাছে টাকা দাবি করে। বিষয়টি তিনি সাথে সাথে পুলিশকে জানান। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তার ছেলেকে উদ্ধার করে।

একটি চক্র সিঙ্গারা খেতে দিয়ে ওই ছাত্রকে অজ্ঞান করে কৌশলে পাংশার মাছপাড়া নিয়ে গিয়েছিল বলে ওই ছাত্র স্বীকারোক্তি দিয়েছে। চক্রটি তার বাবাকে ফোন করে টাকা দাবি করে।পরে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে ওই ছাত্রকে উদ্ধার করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে অপহরণকারী ওই চক্রের কাউকে পুলিশ এখনো আটক করতে পারেনি। ওই চক্রকে ধরতে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানান কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোহসীন হোসাইন।