Home বাংলাদেশ আসামী নির্যাতনের অভিযুক্ত সেই পুলিশ অফিসাররা পেলেন শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তার পুরস্কার

আসামী নির্যাতনের অভিযুক্ত সেই পুলিশ অফিসাররা পেলেন শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তার পুরস্কার

7

আসামী নির্যাতনের অভিযুক্ত সেই পুলিশ অফিসাররা পেলেন শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তার পুরস্কার

নাটোরে থানা হেফাজতে আসামি নির্যাতনের অভিযুক্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরীফ আল রাজিব এবং লালপুর থানার অফিসার ইনচার্জ উজ্জল হোসেন নির্বাচিত হয়েছেন সেরা পুলিশ কর্মকর্তা। গত ২৩ জুলাই পুলিশ লাইন ড্রিল সেডে পুলিশ কল্যাণ সভায় সেরা সার্কেল কর্মকর্তা হিসাবে শরীফ আল রাজিব এবং সেরা ওসি হিসাবে লালপুর থানার সেই অফিসার ইনচার্জ উজ্জল হোসেনের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন নাটোরের পুলিশ সুপার মো. সাইফুর রহমান।

উল্লেখ্য, গত ১৩ জুলাই অটোরিকশা ছিনতাই মামলায় ৩ আসামিকে আদালতে তোলা হলে জবানবন্দিতে তারা পাঁচ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে নির্যাতনের বর্ণনা দেন। পরে লালপুর আমলি আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোসলেম উদ্দীন অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য নাটোরের পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন।

অভিযুক্ত পাঁচজনের মধ্যে লালপুর থানার দুইজন উপপরিদর্শক ও একজন কনস্টেবলও রয়েছেন। এর পর ১৬ জুলাই রিভিশন আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে জেলা দায়রা জজ মো. শরীফউদ্দীন মামলার আদেশ স্থগিত করেন। রিভিশনের পরবর্তী শুনানির তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করেন বিচারক।

এদিকে থানা হেফাজতে আসামিদের নির্যাতন এবং তিনি দিন ধরে আটকে রাখার ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের এমন পুরস্কার দেয়ার ঘটনাকে প্রশ্রয় দেয়া অপরাধের শামিল বলছেন নাটোরের সচেতন মহল।

প্রত্যেক মানুষরেই আইনগত অধিকার আছে। যেসব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক থানা হেফাজতে আসামিদের বিরুদ্ধে নির্যাতন এবং ২৪ ঘণ্টার বেশি থানায় আটকে রাখার অভিযোগ উঠল। তাদেরকে পুরস্কার দেয়া একদিকে যেমন অপরাধে উৎসাহিত করা বলেই মনে করি। এমন ঘটনা ঘটলে সমাজে বিরূপ প্রভাব পড়ে। এমন কাজ পুলিশ কর্তৃপক্ষের কোনভাবেই করা উচিত নয় বলে জানান দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির নাটোর জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক।

অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের শ্রেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা হিসাবে পুরস্কার দেয়ার অর্থ হলো তাদেরকে উৎসাহিত করা। অভিযুক্তরা তো শাস্তি পেলোই না উল্টো পুরস্কৃত হলো। এতে অন্যান্য পুলিশ মেসেজ পেলো যে এমন ঘটনা ঘটালেও কোনো শাস্তি হবে না বলে জানান সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) কমিটির নাটোর জেলার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আব্বাস আলী।

যেসব পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল সেটা সঠিক নয়। তাছাড়া একদিনের কোনো কাজের বিবেচনায় নয় বরং সারা মাসের কাজের মূল্যায়ন করে পুলিশ হেডকোয়ার্টারের মার্কিংয়ের উপর ভিত্তি করে পুরস্কার দেয়া হয়েছে বলে জানান নাটোরের পুলিশ সুপার মো. সাইফুর রহমান।

বিষয়টি জানেন না এবং তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (প্রশাসন) রশীদুল হাসান।