Home কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় অপারেশন করে হয়রানির শিকারের অভিযোগ সংবাদ সম্মেলন

কুষ্টিয়ায় অপারেশন করে হয়রানির শিকারের অভিযোগ সংবাদ সম্মেলন

90

কুষ্টিয়ায় অপারেশন করে হয়রানির শিকারের অভিযোগ সংবাদ সম্মেলন

কুষ্টিয়া দৌলতপুর

কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়া জনোনি নার্সিং হোমে ডাক্তার এম এ জামানের পরামর্শে ভর্তি হয়ে হয়রানির শিকার হয়েছেন সাথী না এক নারী, সংবাদ সম্মেলন এমনটি দাবী তার। সাথী কৈপাল গ্রামের আলমগীর হোসেনের স্ত্রী।

শুক্রবার সকাল ১১ টার সময় দৌলতপুর রিপোর্টর্স ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন লিখিত বক্তব্যে সাথী বলেন, প্রায় ১ বছর আগে আমার পেটে ব্যথা হয়। আমি চিকিৎসার জন্য তারাগুনিয়া বাজারে ছয় তলা বিল্ডিং এ অবস্থিত আল্লার দান সনো এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে যায়। সেখানে ডাক্তার তাসনিম সুলতানা কে দেখালে তিনি পরিক্ষা নিরিক্ষা শেষে বলেন আমার অভারিতে সিস্ট হয়েছে বলেন । সে আর বেশি সিওর হওয়ার জন্য আমাকে কুষ্টিয়া সনো সেন্টারে পাঠায় সেখানেও আমার সিস্ট ধরা পড়ে। পরে আল্লাহর দান সনো এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ১১/৬/ ২০২২ ইংরেজি তারিখে আসলে ডাক্তার এম এ জামান আমাকে আবার সনো করে এবং সিস্ট আছে বলে উল্লেখ করে তাড়াতাড়ি জনোনি নার্সিং হোমে ভর্তির পরামর্শ দেন। তার কথা মত ১১/৬/২০২২ ইংরেজি তারিখে জননী নার্সিং হোমে ভর্তি হলে ডাক্তার এম এ জামান আমার অপারেশন করে দেয়। এবং অপারেশন টেবিলে রেখে আমার পরিবারের কাছে থেকে ১৩ হাজার টাকা নিয়ে নেই।

অপারেশন করার আগে যেমন পেটে যন্ত্রণা ছিলো অপারেশন করার পরেও ঠিক তেমন যন্ত্রণা থাকার কারনে প্রায় ১ মাস পরে ডাক্তার এম এ জামানের কাছে গেলে তিনি বিভিন্ন রকম যুক্তি দিয়ে ঘুরাইতে থাকে। পরে অপারেশন করার ছয় মাস অতিবাহিত হলেও যন্ত্রণা না কমায় তিনি আবার আমাকে ২/১২/২০২২ ইংরেজি তারিখে সনো করান এবং বলেনত আমার পেটে ইনফেকশন হয়েছে। ইনফেকশন হয়েছে বলে ১ মাসের ঔষধ দেন তিনি। ১ মাস ঔষধ খাওয়া হলেও যন্ত্রণা না কমলে আমি আমার বাবার সহযোগিতায় ৮/২/২০২৩ ইংরেজি তারিখে রাজশাহী পপুলারে গিয়ে ডাক্তার নিশাত আনাম বর্ণা কে দেখালে তিনি সনো করে সিস্ট আছে বলে উল্লেখ করে। আমি তো সিস্ট অপারেশন করলাম ৬ মাস ডাক্তার এম এ জামান আমাকে হয়রানি করে ঘুরালো এবং ভুল চিকিৎসা দিলো এই ঘটনার তদন্ত করে সঠিক বিচার চাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে।

এ বিষয়ে ডাক্তার এম এ জামান বলেন আমি নিয়ম মেনে অপারেশন করেছি। তবে নতুন করে আবার সিস্ট হতে পারে।

এ সময় দৌলতপুর রিপোর্টর্স ক্লাবের একাধিক সাংবাদিক ও সায়ীর পরিবারের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।