Home কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় অর্থাভাবে বুয়েট পড়া অনিশ্চিত, এনামুলের পাশে দাঁড়ালেন কুমারখালীর ইউএনও 

কুষ্টিয়ায় অর্থাভাবে বুয়েট পড়া অনিশ্চিত, এনামুলের পাশে দাঁড়ালেন কুমারখালীর ইউএনও 

220

কুষ্টিয়ায় অর্থাভাবে বুয়েট পড়া অনিশ্চিত, এনামুলের পাশে দাঁড়ালেন কুমারখালীর ইউএনও

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী মো. এনামুল হকের পাশে দাঁড়ালেন কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিতান কুমার মন্ডল। আজ ৭ সেপ্টেম্বর বুধবার সকালে এনামুলকে ইউএনও কার্যালয় ডেনে পাঠান ইউএনও। এসময় তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও নগদ ১০ হাজার টাকা আর্থিক সহযোগীতা প্রদান করেন এই মানবিক ইউএনও।

এনামুল কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহ ইউনিয়নের বেলগাছি গ্রামের মো. ইসরাইল হোসেনের ছেলে। তিনি ২০২১ – ২০২২ শিক্ষাবর্ষে বয়েটের

বুয়েটের ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি হয়েছেন। তাঁর বাবা একজন ইজিবাইক চালক। এনামুল এক বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে মেঝো। তিনি ২০১৯ সালে এসএসসি পরীক্ষায় কুষ্টিয়া জিলা স্কুল থেকে (বিজ্ঞান বিভাগ) জিপিএ -৫ পেয়ে অর্জন করেন এবং ২০২১ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ থেকে গোল্ডেন জিপিএ -৫ অর্জন করেন।

জানা যায়, মেধাবী ও কৃতি শিক্ষার্থী এনামুলের বাবা একজন ইজিবাইক চালক হওয়ায় অর্থাভাবে বুয়েটে পড়াশোনা চালিয়ে নেওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। গত ৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ২০২২ রাতে সোস্যাল মিডিয়ায় এনামুলের অসহায়ত্বের এমন খবর প্রকাশিত হলে নজরকাড়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিতান কুমার মন্ডলের। তাঁকে পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দেন ইউএনও। সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আজ বুধবার এনামুলকে নিজ কার্যালয়ের ডেকে পাঠান ইউএনও। পরে তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও নগদ ১০ হাজার টাকা সহযোগীতা করেন তিনি।

এবিষয়ে বুয়েট ছাত্র এনামুল হক বলেন, ‘ আমার বাবা ইজিবাইক চালক হওয়ায় খুব ছোট থেকে দারিদ্র্যতার সাথে যুদ্ধ করে পড়াশোনা চালিয়ে আসছি। অনেক গুণীমানুষের সহযোগীয় আমার এপর্যন্ত আশা। সকলের দোয়ায় বুয়েটে ভর্তির সুযোগ পেয়েছি। কিন্তু বয়েট পড়া খুব ব্যয়বহুল হওয়ায় সাময়িক আর্থিক সংকটে পড়েছি। বুয়েটে ভর্তি হতে পারলে টিউশনি করে চলতে পারব।’

তিনি আরো বলেন, ‘ মানবিক ইউএনও স্যার আমার অসহায়ত্বের খবর পেয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে। আমি খুব আনন্দিত ও গর্বিত। আমিও প্রতিষ্ঠিত হলে ভবিষ্যতে মানুষের পাশে দাঁড়াবো।’

উপজেলা প্রশাসন সব সময় মেধাবীদের পাশে ছিলো, আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে। কৃতি ছাত্র এনামুলকে প্রাথমিকভাবে ১০ হাজার টাকা সহযোগীতা করা হয়েছে। প্রয়োজনবোধে ভবিষ্যতে সহযোগীতা অব্যাহত থাকবে। ‘উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিতান কুমার মন্ডল বলেছেন।