Home কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আটক 

কুষ্টিয়ায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আটক 

261

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আটক

মাদক মামলায় কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মো. বাহাদুর (৩২) গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৩ ২৬ অক্টোবর বুধবার রাতে ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়া এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের বাবুল সরদারের ছেলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বাহাদুর।সে পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। সে দীর্ঘ দিন ধরে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করতো। তার বিরুদ্ধে চারটি মাদক মামলায় ও একটি মারামারি মামলা রয়েছে। মাদক মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় তাকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম।

মামলার এজাহার ও আদালত সূত্রে জানা যায় ২০১৮ সালের ১৩ আগস্ট বিকেলের দিকে দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর গ্রামে মাদক বিরোধী অভিযানে আসামি বাহাদুরের কাছে থেকে ২৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে দৌলতপুর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় সেদিনই তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে থানায় মামলা হয়।

আসামির বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৩১ অক্টোবর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাইফুল ইসলাম। ৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ১৯(১) টেবিল ৩(খ) ধারার অধীনে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় গত ১৮ জুলাই বাহাদুরকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম। সেই সঙ্গে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। রায় ঘোষণার দিন তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। এতাদিন পলাতক ছিলেন আসামি বাহাদুর।

মাদক মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি বাহাদুরকে র‍্যাব-৩ এর অভিযানিক দল আশুলিয়া এলাকা থেকে বুধবার রাতে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানায় চারটি মাদক মামলা ও একটি মারামারি মামলা রয়েছে। বাহাদুর দুটি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামি ছিলো। তাকে কুষ্টিয়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবর রহমান।