Home কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অডিও ফাঁসের পর নিয়োগ বোর্ডের সভা স্থগিত 

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অডিও ফাঁসের পর নিয়োগ বোর্ডের সভা স্থগিত 

68

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অডিও ফাঁসের পর নিয়োগ বোর্ডের সভা স্থগিত

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) এক চাকরিপ্রার্থীর সঙ্গে উপাচার্যের (ভিসি) কণ্ঠসদৃশ অডিও ফাঁসের পর আগামী সোম ও বুধবারের তিনটি নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ডের সভা স্থগিত করেছে কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে সভা স্থগিতের তথ্য জানানো হয়েছে। এত বলা হয়েছে, ২০ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার মেডিকেল অফিসার পদের, ২২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও একই দিনে সাড়ে ১১টার গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক পদের নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ডের সভা অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হয়েছে। তারিখ ও সময় পরে জানানো হবে।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি শেখ আবদুস সালামের কণ্ঠসদৃশ কথোপকথনের তিনটি অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ হয়। কথোপকথনের ক্লিপগুলোতে এক চাকরিপ্রার্থীকে শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড স্থগিতের কারণ ব্যাখ্যা ও পরবর্তী নিয়োগ বোর্ড অনুষ্ঠিত করার আশ্বাস দেন এক ব্যক্তি। যার কণ্ঠের ভিসির কণ্ঠের মিল রয়েছে। একই সঙ্গে প্রার্থীকে বোর্ডের প্রশ্ন সরবরাহ ও কীভাবে লিখতে হবে, সে বিষয়ে পরামর্শ দেয়া হয়। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে পরামর্শ ও তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে বলা হয়। সবকিছু ঠিক থাকলে ৩০ দিনের মধ্যে বোর্ডের আয়োজন ও বোর্ড সম্পন্ন করতে টাকার বিনিময়ে বোর্ডে তিনজন চাকরিপ্রার্থী প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা দেয়া হয় ওই কথোপকথনে।

১৭ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার রাতে ইবি থানায় গিয়ে এ বিষয়ে জিডি করেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান। সেসময় তিনি বলেছিলেন, ‘ভিসি স্যার আমাকে জিডি করতে বলেছেন, তাই ইবি থানায় জিডি করেছি। অডিও পোস্টদাতার অ্যাকাউন্টটি শনাক্ত করতে জিডি করা হয়েছে। অডিও কার এটা তো আমি জানি না, এটা প্রশাসন বের করবে।’

সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের নিয়োগ বোর্ড স্থগিতের বিষয় নিয়ে নিয়োগপ্রার্থীর সঙ্গে উপাচার্যের কণ্ঠসদৃশ ওই ব্যক্তির আলাপ হয়। তবে অডিওতে চাকরীপ্রার্থীর কণ্ঠ শোনা যায়নি।

গত ২৫ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড অনুষ্ঠিত হয়। এতে সহকারী অধ্যাপক পদে আবেদন করেন অলিউর রহমান, মোশারফ হোসেন ও বিউটি মণ্ডল নামের তিনজন। ওই তিন প্রার্থী উপস্থিত না হওয়ায় বোর্ড স্থগিত হয়। পরে গত ২ ডিসেম্বর আবারও বিজ্ঞপ্তি দেয় কর্তৃপক্ষ। ২২ ফেব্রুয়ারি ওই নিয়োগ বোর্ড অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সেটিও স্থগিত করা হলো।

এ ব্যাপারে ভিসি শেখ আবদুস সালামের বক্তব্য নিতে কল করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।