Home বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীর পতন দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, শিক্ষক মিজানুর রহমান সাময়িক বহিষ্কার

প্রধানমন্ত্রীর পতন দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, শিক্ষক মিজানুর রহমান সাময়িক বহিষ্কার

11

প্রধানমন্ত্রীর পতন দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, শিক্ষক মিজানুর রহমান সাময়িক বহিষ্কার

আগে শেখ হাসিনার পতন, পরে জাতীয় নির্বাচন’ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলায় মো. মিজানুর রহমান নামের এক শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। সাময়িক বহিষ্কার শিক্ষক মিজানুর রহমান উপজেলার মজলিশপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন বলে জানা গেছে।

মজলিশপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের গত মঙ্গলবার (২৩ মে) দুপুরে এক জরুরি সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ওই শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয় স্কুল পরিচালনা কমিটি।

আজিজুর রহমান আরজু এ তথ্য নিশ্চিত করেন।বুধবার (২৪ মে) দুপুরে মজলিশপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি।

বর্তমান রাষ্ট্রপ্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পতন দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে শিক্ষক মিজানুর রহমান গুরুতর অপরাধ করেছেন। যা একজন শিক্ষকের কাছে আমরা কখনই প্রত্যাশা করিনি। তাই আমরা কমিটির সদস্যরা জরুরি সভা ডেকে নিয়ম মোতাবেক সর্বসম্মতিক্রমে তাকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। তার স্থায়ী বরখাস্তের জন্য পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযুক্ত শিক্ষক মিজানুর রহমান নূরুল হক নূরের গণঅধিকার পরিষদের রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে যুক্ত রয়েছেন তিনি বলে জানান মজলিশপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আজিজুর রহমান আরজু।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে আমার বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক তার ফেসবুকে গত ২১ মে একটা স্ট্যাটাস দেন। এতে তিনি লিখেন- আগে শেখ হাসিনার পতন, পরে জাতীয় নির্বাচন।’ এমন স্ট্যাটাস দেখে মুহূর্তেই এলাকায় মারাত্মক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয় এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা চরম ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। এ অবস্থায় ম্যানেজিং কমিটির জরুরি সভা ডেকে তাকে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান মজলিশপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন চন্দ্র দেবনাথ।

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে সাময়িক বহিষ্কৃত হওয়া শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান জানান ,ওই সময় আমার ফেসবুক আইডিটা হ্যাক হয়ে গিয়েছিলো। বিষয়টা নিয়ে আমি বর্তমানে খুবই বিপাকে আছি।

অভিযুক্তকে ম্যানেজিং কমিটির সভায় সাময়িক বহিষ্কারের বিষয়টি আমি জেনেছি। এ বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ফোনে আমার সাথে পরামর্শও করেছেন। একজন শিক্ষক হিসেবে মিজানুর রহমান প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে এমন স্ট্যাটাস কোনোভাবেই দিতে পারেন না। এটা তার চাকরি নীতিমালার সম্পূর্ণ পরিপন্থী বলেও মন্তব্য করেন তিনি বলে জানান উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাইফুল আলম।