Home বাংলাদেশ স্ত্রীর চিকিৎসার খরচ যোগাতে না পেরে বৃদ্ধের আত্মহত্যা

স্ত্রীর চিকিৎসার খরচ যোগাতে না পেরে বৃদ্ধের আত্মহত্যা

9

স্ত্রীর চিকিৎসার খরচ যোগাতে না পেরে বৃদ্ধের আত্মহত্যা

মোতালেব শেখ (৬৫) নামে ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে এক বৃদ্ধের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। মৃত মোতালেব দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থতায় ভুগছিলেন বলে জানা যায়। এরইমধ্যে তার স্ত্রীও অসুস্থ হয়ে পড়লে উভয়ের চিকিৎসার খরচ বহনের কোনো উপায় না পেয়েই মোতালেব শেখ আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা স্থানীয়দের।

সোমবার (২৯ মে) দুপুরে উপজেলার চতুল ইউনিয়নের শুকদেব নগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন বোয়ালমারীর চতুল ইউনিয়নের শুকদেবনগর গ্রামের মোতালেব শেখ। বৃদ্ধ এ দম্পতির দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তান থাকলেও তারা যার যার মতো নিজের সংসার নিয়ে আলাদা থাকেন। বৃদ্ধ দম্পতির দেখাশোনা করার মতো কেউই ছিলো না। এক পর্যায়ে দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ মোতালেবের পক্ষে নিজের ওষুধ কেনার টাকা যোগাড় করাও কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। তাকে দেখাশোনা করতেন শুধুমাত্র তার স্ত্রী। তিনিও গত দুইদিন আগে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। স্ত্রী ও নিজের অসুস্থতা চিকিৎসার খরচ জোগাড়ে অপারগতার কারণে এক পর্যায়ে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন মোতালেব শেখ এবং ২৯ মে সোমবার দুপুরের দিকে বসত ঘরের আড়ার সাথে রশি বেধে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

মোতালেব শেখ আলসারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এ নিয়ে তিনি হতাশাগ্রস্থ ছিলেন। এরমধ্যেই তার স্ত্রীও কয়েকদিন আগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। সব মিলিয়ে মোতালেব শেখ মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েন। এ কারণেই হয়তো তিনি আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন বলে ধারণা করছি বলে জানান  চতুল ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (৩০ মে) মোতালেবের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে জানিয়েছে পুলিশ।এ ঘটনায় বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন মোতালেবের ছেলে।

লাশ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে। মঙ্গলবার লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর মর্গে পাঠানো হবে বলে জানান লাশ উদ্ধারকারী বোয়ালমারী থানার উপপরিদর্শক নাজমুর রহমান।

তিনি আরও বলেন, এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।